বিএফডিসিতে কঠোর নিরাপত্তায় চলছে শিল্পী সমিতির নির্বাচন

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ, ২৮/০১/২০২২

কঠোর নিরাপত্তায় চলছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২২-২৪ মেয়াদের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে ভোট চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

সরেজমিনে এফডিসি ঘুরে দেখা গেছে, এফডিসির প্রবেশ পথে রয়েছে কঠোর নিরাপত্তা। প্রত্যেককে কার্ড দেখিয়ে প্রবেশ করানো হচ্ছে।

নিরাপত্তা বিভাগ জানিয়েছে, ভোট উপলক্ষ্যে এফডিসিতে আজ ৩০০ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এমন নিরাপত্তা ব্যবস্থায় এফডিসিতে প্রবেশকে যুদ্ধের সঙ্গে তুলনা করেছেন সভাপতি প্রার্থী অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। এরই মধ্যে ৯টায় ১৬ মিনিটে প্রথম নিজের ভোট প্রদান করেছেন বলে উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে, আরেক সভাপতি প্রার্থী অভিনেতা মিশা সওদাগর কিছুক্ষণ পর ভোট প্রদান করবেন বলে জানিয়েছেন।

হাই ভোল্টেজ এই নির্বাচনকে ঘিরে আলোচনার শেষ নেই। তারকাবহুল এ নির্বাচন দেশবাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। সেই প্রমাণ মিললো আজ নির্বাচনের দিনও৷ এফডিসির সামনে সকাল থেকেই দেখা যাচ্ছে হাজারও মানুষের আনাগোনা৷ বেশিরভাগই দূর-দূরান্ত থেকে আসা।

Nagad

তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেলো, প্রিয় তারকারা আজ নির্বাচন করছেন, ভোট দেবেন। এক নজর সবাইকে দেখার জন্য ছুটে এসেছেন তারা।

এদিকে এত দর্শনার্থী সামাল দিতে ঘাম ছুটে যাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর। এফডিসির সামনে পরিস্থিতি শান্ত রাখতে পুলিশ ও র‍্যাব মোতায়েন করা হয়েছে।

আজ নির্বাচনে ভোট দেবেন ৪২৮ জন ভোটার। এবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন পীরজাদা হারুন। তার সঙ্গে সহযোগী হিসেবে আছেন জাহিদ হোসেন ও বি এইচ নিশান।

এবারের নির্বাচনে সভাপতি পদে অভিনেতা মিশা সওদাগর এবং সাধারণ সম্পাদক পদে চিত্রনায়ক জায়েদ খান এক প্যানেল থেকে নির্বাচন করছেন। অন্যদিকে, সভাপতি পদে অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তার অপর প্যানেল থেকে নির্বাচন করছেন। দুই প্যানেলই ২১ সদস্যের কমিটির এ নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী বলে জানিয়েছে।

দুজন স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ৪৪ জন চলচ্চিত্রশিল্পী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ নির্বাচনে মোট ভোটার ৪২৮ জন।

এবার নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন পীরজাদা হারুন। কমিশনের দুজন সদস্য হলেন জাহিদ হোসেন ও বজলুর রাশীদ চৌধুরী। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান করা হয়েছে সোহানুর রহমান সোহানকে। আর, মোহাম্মদ হোসেন জেমী ও মোহাম্মদ হোসেনকে আপিল বোর্ডের সদস্য করা হয়েছে।