মধ্যরাতে রাবি শিক্ষার্থীকে মারধর

রাবি সংবাদদাতারাবি সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ৪:২৩ অপরাহ্ণ, ২৫/০৬/২০২২

সংগৃহীত

মধ্যরাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনায় একজনকে হল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ। এই ঘটনায় অবৈধভাবে হলে থেকে বিশৃঙ্খলার দায়ে আরও দুইজনকে হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ জুন) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাধ্যক্ষ পরিষদের এক জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এই ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে নবাব আব্দুল লতিফ হলের গৃহশিক্ষক ড. হামিদুল ইসলামকে আহ্বায়ক এবং ড. অনিক কৃষ্ণ কর্মকার ও ড. আব্দুল কাদেরকে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে।

সভা সূত্রে জানা গেছে, নবাব আব্দুল লতিফ হলের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে আবাসিক ছাত্র তাসকীফ আল তৌহিদকে হল থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়া শামীম হোসেনের শিক্ষা জীবন শেষ এবং পারভেজ হাসান জয় বঙ্গবন্ধু হলের নিবন্ধিত ছাত্র হওয়ায় তাদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একইসাথে অবৈধভাবে অবস্থান করে হলে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির দায়ে তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান বলেন, প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে একজনকে সাময়িক বহিষ্কার এবং দুইজনকে হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দুইজন এই হলের বৈধ ছাত্র না হওয়ার পরেও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির দায়ে উপযুক্ত কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আগমী তিন কর্ম দিবসের মধ্যে উপযুক্ত কারণ দর্শাতে না পারলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাছাড়া তদন্ত কমিটিকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অভিযোগের তথ্য-প্রমাণ সাপেক্ষে অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তি দেওয়া হবে।

Nagad

উল্লেখ্য, গত ২৪ জুন (শুক্রবার) মধ্যরাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব আব্দুল লতিফ হলের ২৪৮ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী মুন্নাকে মারধর ও লাঞ্ছিত করার অভিযোগ ওঠে হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম ও তার অনুসারী ছাত্রলীগকর্মী পারভেজ ও তৌহিদের বিরুদ্ধে। বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন ঘটনা ঘৃণ্য অ্যাখ্যা দিয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষক। তারা এমন ঘটনায় অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

সারাদিন/২৫ জুন/এমবি