ডলার নিয়ে কারসাজি করলেই মানি এক্সচেঞ্জ হাউসের লাইসেন্স বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক:নিজস্ব প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ৮:২২ অপরাহ্ণ, ২৮/০৭/২০২২

চলমান ডলার সংকটের সময় ডলার নিয়ে কেউ কারসাজি করলে মানি এক্সচেঞ্জের লাইসেন্স বাতিল করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ ছাড়া যারা লাইসেন্স ছাড়াই ডলারের ব্যবসা করছেন, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতির (এফবিসিআইএ) সঙ্গে বৈঠক করে বাংলাদেশ ব্যাংক। বৈঠক শেষে এ কথা জানান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘কারসাজি করে ডলারের দাম বাড়িয়ে যেসব এক্সচেঞ্জ হাউজ ও ব্যাংকগুলো মুনাফা করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো। এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক ও গোয়েন্দা সংস্থার সমন্বয়ে টিম মাঠে কাজ করছে। কোনো ধরনের অনিয়মের প্রমাণ পেলে বাতিল হতে পারে লাইসেন্স।’

বৈঠক শেষে এফবিসিআই সভাপতি জসিম উদ্দিন বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংক ৯৪ টাকায় ডলার সরবরাহ করবে, আর আপনি ১০৫-১১০ টাকায় বিক্রি করবেন এটা হতে পারে না। এখানে ডিসিপ্লিন আনা দরকার, ডিসিপ্লিনের জায়গাটা শক্ত নেই। অনেক শেয়ার ব্যবসায়ী এখন নাকি ডলারের ব্যবসায় জড়িত হয়েছেন। ডলার কারসাজিতে যে কোনো ব্যক্তি জড়িত হোক না কেন তাদের শক্ত হাতে ধরা উচিত।’

জসিম উদ্দিন বলেন, ‘ডলার নিয়ে কথা হয়েছে। ডলার সংকট নিয়ে গণমাধ্যমে দেখেছি। এখানে ডিসিপ্লিনের জায়গাটাতে আরও শক্ত হওয়ার কথা বলেছি। আমাদের ব্যাংকগুলোকে লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে ব্যবসার জন্য। এখন ৯৪ টাকায় ডলার দেবে আর ১০৫-১১০ টাকায় বিক্রি করবে এটা আমরা চাই না। এক ডলারে ১০ টাকা লাভের জন্য লাইসেন্স দেওয়া হয়নি।’

ব্যবসায়ীদের এ শীর্ষ নেতা বলেন, ‘শুধু ব্যাংক না এক্সচেঞ্জ হাউজগুলোও যদি অনিয়ম করে থাকে তাদেরও ধরা উচিত। আমি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরকে অনুরোধ করেছি তিনি যেন এটা দেখেন।’

Nagad

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বৃহস্পতিবার ব্যাংকে নগদ ডলার ১০৬ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে। এর আগে গত রোববার খোলাবাজারে দর ছিল ১০৫ টাকা। এ বাজারে প্রথমবারের মতো ১০০ টাকার ঘর পেরিয়ে যায় গত ১৭ মে। এরপর আবার কমে। গত ১৭ জুলাই ফের ১০০ টাকা অতিক্রম করে ডলারের দাম।