রীতি ভেঙ্গে কাবা শরীফের গিলাফ পরিবর্তন

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ৬:১০ অপরাহ্ণ, ৩০/০৭/২০২২

সংগৃহীত

সৌদি আরবের মক্কার পবিত্র মসজিদ আল হারাম ও মদিনার মসজিদে নববীর রীতি ভেঙ্গে গিলাফ পরিবর্তন করা হয়েছে।

ওই মসজিদ দু’টির পরিচালনা পর্ষদের ঘোষণা অনুযায়ী শনিবার (৩০ জুলাই) মক্কায় কাবার গিলাফ পরিবর্তন করা হয়।

এতদিন এটি ঈদ উল আজহার আগে হজ্বের মূল আনুষ্ঠানিকতা অর্থাৎ আরাফাতের ময়দানে সমবেত হওয়ার দিন করা হতো। কিন্তু এবার হজ্বের সময়ে ঐতিহ্য অনুযায়ী অর্থাৎ নয় জিলহজ তারিখে গিলাফ পরিবর্তন করা হয়নি।

বাংলাদেশের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফাসসির ড. মো: আবু ছালেহ পাটোয়ারি গণমাধ্যমকে বলেন, এবার রেওয়াজের ব্যতিক্রম করা হয়েছে কারণ সে দেশের সরকার হিজরি সনকে গুরুত্ব দিয়ে গিলাফ পরিবর্তন করার কথা বলেছে। তিনি আরও বলেন, হজ্বের মূল আনুষ্ঠানিকতার দিনই হাজীদের উপস্থিতিতে গিলাফ পরিবর্তন করাটাই ছিলো দীর্ঘকালের রেওয়াজ।

ড. আবু ছালেহ পাটোয়ারি বলেন, হজ্বের সময় নতুন গিলাফ দেয়ার পর পুরনো গিলাফ সাধারণত মুসলিম দেশের সরকার বা রাষ্ট্রপ্রধান কিংবা বিভিন্ন মুসলিম দেশের মসজিদকে উপহার হিসেবে দিয়ে সম্মানিত করা হতো। এবার কি করা হবে জানিনা। কারণ বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত কোন কিছু মুসলিম বিশ্বকে জানানো হয়নি।”

সৌদি প্রবাসী সাংবাদিক রুমী সাঈদ গণমাধ্যমকে বলেন, মক্কা ও মদিনার দুই প্রধান মসজিদের পরিচালনা কর্তৃপক্ষ পহেলা মুহররমে গিলাফ পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত চলতি মাসের শুরুতেই জানিয়ে দিয়েছিলো।

উল্লেখ্য, ৬৫৮ বর্গমিটারের পবিত্র মসজিদ আল হারাম-এর গিলাফটি তৈরিতে ৬৭০ কেজি কালো রেশম ব্যবহার করা হয়। ৪৭টি কাপড়ের টুকরোকে বিশেষ মেশিনে সেলাই করা হয়। এরপর কালো গিলাফের গায়ে মেশিনের ছাপ দিয়ে লেখা হয় আল্লাহর নাম ও গুণাবলি।

আরব নিউজের তথ্য অনুযায়ী, এরপর গিলাফটি গিল্ডিং অ্যান্ড এমব্রয়ডারি বিভাগে যায়। সেখানেই ক্যালিগ্রাফির ও শিল্পীরা গিলাফের চারদিকের সোনালি বেল্ট ও কাবার দরজার পর্দা তৈরি করেন।

২৩ থেকে ৬০ বছর বয়সী পঞ্চাশ জনের বেশি দক্ষ শিল্পী তাতে কোরআনের আয়াত ও অন্যান্য দোয়া এমব্রয়ডারি করেন। এই কাজে ১০০ কেজি খাঁটি রুপা এবং ১২০ কেজি সোনার প্রলেপযুক্ত রৌপ্য সুতা ব্যবহৃত হয়।

সারাদিন/৩০ জুলাই/এমবি

Nagad