ভোলায় পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে নিহত এক, আহত অর্ধ শতাধিক

ভোলা সংবাদদাতাভোলা সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ৫:২৭ অপরাহ্ণ, ৩১/০৭/২০২২

সংগৃহীত

ভোলায় বিক্ষোভ সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুলিশের সাথে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। এ সময় পুলিশসহ বিএনপির অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

রোববার (৩১ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ভোলা জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের এই ঘটনা ঘটে।

নিহত মো: আব্দুর রহিম ভোলাসদর উপজেলার দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা।

জানা গেছে, তেল-গ্যাসের দাম বৃদ্ধি ও লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদে ভোলায় বিক্ষোভ সমাবেশ করে বিএনপি। মিছিলের একপর্যায়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ ও গুলির ঘটনা ঘটে।

জেলা বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির শোপন জানান, বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সমাবেশ শেষে বিক্ষোভ করতে গেলে পুলিশ বাধা দেয়। একপর্যায়ে পুলিশ টিআর শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এতে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হন। এছাড়া পুলিশের গুলিতে আব্দুর রহিম নামে একজন নিহত হন। আহতদের ভোলা সদর ও বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ভোলা সদর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা নিরুপম সরকার গণমাধ্যমকে বলেন, “সংঘর্ষের ঘটনায় ৪০ জনের বেশি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন মারা গেছেন।”

Nagad

ভোলা সদর থানার ডিউটি অফিসার কবির হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, “বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে পুলিশের ওপর হামলা করা হলে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আমি শুনেছি এই ঘটনায় একজন মারা গেছেন। তবে বিষয়টি আমি নিশ্চিত না।”

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: ফরহাদ সরদার গণমাধ্যমকে জানান, বিএনপি নেতাকর্মীরা রাস্তায় বের হয়ে উচ্ছৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে। পুলিশ বাধা দিলে তাদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১৫৩ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছোড়ে এবং ৩০ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।

ভোলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হন। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে।

সারাদিন/৩১ জুলাই/এমবি