আজকের দিনের আন্তর্জাতিক পর্যায়ের শীর্ষ ১০ খবর

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৩৩ পূর্বাহ্ণ, ০৩/০৮/২০২২

জাওয়াহিরি হত্যায় আল-কায়েদার প্রতিশোধের আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা

আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা আয়মান আল-জাওয়াহিরি হত্যার জেরে জঙ্গি সংগঠনটির দিক থেকে বিদেশে আমেরিকা-বিরোধী সম্ভাব্য সহিংসতার ব্যাপারে দেশের নাগরিকদের সজাগ থাকতে বলেছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর এক সতর্ক বার্তায় বলেছে, জাওয়াহিরি হত্যার ঘটনা আল-কায়েদার সমর্থক বা সংশ্লিষ্ট সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগোলোকে যুক্তরাষ্ট্রের স্থাপনা এবং কর্মীদের ওপর হামলায় প্ররোচিত করতে পারে। বুধবার এই খবর দিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি অনলাইন। গত রোববার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা জাওয়াহিরি নিহত হন। যুক্তরাষ্ট্রে নাইন ইলেভেন (৯/১১) হামলার পরিকল্পনায় তিনি সহায়তা করেছিলেন বলে মনে করা হয়। ওই হামলায় তিন হাজার মানুষ নিহত হয়-সূত্র: সমকাল

মার্গারেট থ্যাচারের উত্তরাধিকার নিয়ে আসছেন লিজ ট্রাস?

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ক্ষমতা ছাড়ার মুহূর্ত এগিয়ে আসছে। তার উত্তরসূরি হিসেবে যুক্তরাজ্যের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছেন দেশটির বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস। ঋষি সুনাককে হারিয়ে ক্ষমতাসীন রক্ষণশীল দলের প্রধান নির্বাচিত হতে পারলেই প্রধানমন্ত্রিত্ব নিশ্চিত হচ্ছে তার। সে ক্ষেত্রে তিনি হবেন যুক্তরাজ্যের তৃতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী।
দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে জনপ্রিয় কট্টর রক্ষণশীল এ নেতাকে অনেকেই তুলনা দিচ্ছেন প্রথম ব্রিটিশ নারী প্রধানমন্ত্রী মার্গারেট থ্যাচারের সঙ্গে। মার্গারেট থ্যাচারের মতোই ‘লৌহমানবীর’ ভাবমূর্তিতে এরই মধ্যে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে ফেলেছেন তিনি।
ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর এক ট্যাংকের ওপর তোলা লিজ ট্রাসের একটি ছবি কিছুদিন আগে দেশটির সংবাদমাধ্যম ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের নজর কাড়ে। স্নায়ুযুদ্ধের শেষ দিনগুলোয় মার্গারেট থ্যাচারের এমন একটি ছবি বিশ্ববাসীর সামনে তার লৌহমানবীর ইমেজকে দৃঢ় করে তুলেছিল। ছবি দুটির মধ্যকার তুলনা দিয়ে লিজ ট্রাসের সমর্থকরা বলছেন, ক্ষমতায় গেলে মার্গারেট থ্যাচারের মতোই দৃঢ় আরেকজন প্রধানমন্ত্রীকে পেতে যাচ্ছে যুক্তরাজ্য। সূত্র: বণিক বার্তা

কে ধরছেন আল কায়দার হাল?
আফগান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাড়িতে থাকতেন জাওয়াহিরি * স্ত্রী-কন্যা ও নাতিদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে এই বাড়িতে থাকতেন * সিআইএ’র উদ্দেশ্য ছিল শুধু জাওয়াহিরিকে হত্যা। তার পরিবারের সদস্য বা অন্যদের না

সৌদি ধনকুবের ও আল কায়দার শীর্ষ নেতা ওসামা বিন লাদেনের পর জঙ্গিগোষ্ঠীটির হাল ধরেন আয়মান আল-জাওয়াহিরি। এর আগে বহু বছর তিনি ছিলেন মূল সংগঠক ও কৌশল নির্ধারণকারী। কিন্তু ব্যক্তিগত ক্যারিশমার অভাব ছিল জাওয়াহিরির। প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গিদের প্রতিযোগিতার মধ্যেও পড়েছিলেন। সম্প্রতি আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছেন জাওয়াহিরি। রোববার ড্রোনের মাধ্যমে ওই হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ। শীর্ষ নেতার মৃত্যুতে কে হতে চলেছেন জঙ্গি সংগঠনটির পরবর্তী শীর্ষ নেতা-এ নিয়ে বিশ্বের সব গোয়েন্দা মহলেই চলছে চাপা গুঞ্জন। আলোচনা শুরু হয়েছে দলের অন্দরমহলেও। আল কায়দার প্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন লাদেন ২০১১ সালের ২ মে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে মার্কিন নেভি সিল কমান্ডো হামলায় নিহত হওয়ার পর জাওয়াহিরি এ আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠনের নেতৃত্বে আসেন। জেষ্ঠ্যতার বিচারে প্রথমে নাম উঠে আসছে বেশ কয়েকজনের। তারা হচ্ছেন সাইফ আল-আদেল, আব্দাল রহমান আল-মাগরেবি, ইয়াজিদ মেবরাক ও আহমেদ দিরিয়ে। সাইফ আল-আদেল : এখনো নিশ্চিতভাবে জানা যাচ্ছে না কে হচ্ছেন পরবর্তী আল কায়দা প্রধান। যদিও এর মধ্যে আল-আদেলের সম্ভাবনাই সব থেকে বেশি বলে আঁচ পাওয়া যাচ্ছে। ২০০১ সাল থেকে এফবিআইয়ের ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ তালিকায় নাম রয়েছে আদেলের। লাদেনের নিরাপত্তার দায়িত্বও একসময় ছিল তার ওপর। ৬০ বছর বয়সি আদেল যুদ্ধে বেশ পটু। জঙ্গিদের ট্রেনিং দিতে তার নাম রয়েছে। সূত্র: যুগান্তর

Nagad

প্রতিদিন শস্যবাহী জাহাজ ইউক্রেন ছাড়ার আশা

ইউক্রেন থেকে প্রতিদিন একটি করে শস্যবাহী জাহাজ বিশ্ববাজারের উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়ার আশা করছেন তুরস্কের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই তুর্কি কর্মকর্তা বলেন, কারিগরি ত্রুটির কারণে প্রথম জাহাজ ছাড়তে দুই দিন দেরি হয়েছে। ওই ত্রুটি এখন সমাধান করা হয়েছে। ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে শস্যবাহী জাহাজের নিরাপদ চলাচলের করিডর ঠিকভাবে কাজ করবে বলেও আশা করছে তুরস্ক।তিনি বলেন, ‘অস্বাভাবিক কিছু না ঘটলে কিছু সময়ের জন্য দিনে একটি করে জাহাজ রওনা করানোর মাধ্যমে (শস্য) রপ্তানিকাজ চলবে। ’ সূত্র: কালের কণ্ঠ

পেলোসির তাইওয়ান সফর
মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে তলব করল ক্ষুব্ধ চীন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরে চটেছে চীন। প্রতিবাদ জানাতে বেইজিংয়ে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকোলাস বার্নসকে তলব করেছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। খবর বিবিসির।চীনের ভাইস ফরেন মিনিস্টার শিয়ে ফেঙ বলেন, পেলোসির এ সফর অসদুদ্দেশ্যপ্রণোদিত’। কঠিন পরিণতির হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, চীন অলস বসে থাকবে না। গতকাল মঙ্গলবার দিনের শেষ দিকে পেলোসি তাইওয়ানে পৌঁছান। দেশটির প্রেসিডেন্ট ও পার্লামেন্ট সদস্যদের সঙ্গে তিনি বৈঠক করতে পারেন। সফরের বিষয়ে পেলোসি বলেন, তাইওয়ানের প্রাণবন্ত গণতন্ত্রের প্রতি আমেরিকার সমর্থনের অবিচল অঙ্গীকারকে তিনি সম্মান জানাতে চান। এর আগে মঙ্গলবার রাতে নির্ধারিত সময়ের কিছুটা আগেই তাইপে পৌঁছান পেলোসি। স্থানীয় সময় ১০টা ৪৪ মিনিটে তাঁর উড়োজাহাজ তাইপের মাটি স্পর্শ করে। মার্কিন সামরিক বাহিনীর একটি বিমানে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর থেকে তিনি তাইপে পৌঁছান। সূত্র: প্রথম আলো

পাল্টাপাল্টি যুদ্ধজাহাজ, তীব্র উত্তেজনা চীন-যুক্তরাষ্ট্রে
মঙ্গলবার রাতেই তাইওয়ানে গেছেন ন্যান্সি পেলোসি

তাইওয়ানে যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভ বা নিম্নকক্ষের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির সফরকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট উত্তেজনায় তাইওয়ান প্রণালিতে বেইজিং ও ওয়াশিংটন পাল্টাপাল্টি যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করেছে। এ ছাড়া তাইওয়ানের জলসীমার কাছাকাছি অঞ্চল দিয়ে একাধিক চীনা যুদ্ধবিমান উড়ে গেছে। সোমবার থেকে সেখানে বেশ কিছু চীনা যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন রাখা হয়েছে। এক সূত্র বলেছেন, চীনের যুদ্ধবিমান ও যুদ্ধজাহাজের তাইওয়ান ও চীনের মধ্যবর্তী অঘোষিত সীমানায় অবস্থান করার বিষয়টি অনেকটাই অস্বাভাবিক ও উত্তেজনা সৃষ্টিকারী। ওই সূত্র আরও বলেছেন, চীনা যুদ্ধবিমান বারবার কৌশলগতভাবে মধ্যরেখা বরাবর এসে আবার প্রণালির অন্যদিক প্রদক্ষিণ করেছে। তাইওয়ানের বিপরীতে চীনের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় শহর শিয়ামেনের বাসিন্দারা সাঁজোয়া যান চলাচল করতে দেখেছেন। গত সপ্তাহ থেকে চীনের সেনাবাহিনী দক্ষিণ চীন সাগর, পীত সাগর ও বোহান সিতে একাধিক সামরিক মহড়া চালাচ্ছে। সূত্র: বিডি প্রতিদিন।

ন্যান্সি পেলোসি: চীনা হুমকির মুখে বিতর্কিত তাইওয়ান সফর শুরু করেছেন মার্কিন হাউস স্পিকার

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংসদের নিম্ন-কক্ষ হাউস অফ রেপ্রেজেনটেটিভের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে বহনকারী একটি বিমান তাইওয়ানে অবতরণ করেছে, যা গত ২৫ বছরের মধ্যে এই স্বশাসিত দ্বীপে সর্বোচ্চ কোন মার্কিন কর্মকর্তার সফর। মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুর থেকে বৃত্তাকার পথে উড়ে যাওয়ার পর মার্কিন সরকারের বিমানটি তাইপে’র সং শান বিমানবন্দরে নেমে আসে।তাইওয়ানের পূর্ব উপকূল বরাবর উত্তরে যাওয়ার আগে বিমানটি বোর্নিও এবং ফিলিপিন্স অতিক্রম করে।চীনা রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত টেলিভিশন সে দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি বিবৃতি প্রচার করেছে যাতে বলা হয়েছে, এই সফর চীন-মার্কিন সম্পর্কের রাজনৈতিক ভিত্তির ওপর গুরুতর প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করবে, এবং এটি চীনের সার্বভৌমত্ব এবং ভৌগলিক অখন্ডতার গুরুতর লংঘন।তাইপে’র বিমানবন্দর থেকে মিসেস পেলোসি সরাসরি তাইপেতে তার হোটেলে যাবেন এবং আগামিকাল সকালে তাইওয়ানের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি সাই ইং-ওয়েনসহ তাইওয়ানের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করবেন বলে মনে করা হচ্ছে। সূত্র: বিবিসি বাংলা।

ইউক্রেইন থেকে বিশ্বের কত শস্য দরকার
যুদ্ধের আগে ইউক্রেইন থেকে বছরে ২৩ লাখ টন গম আমদানি করত বাংলাদেশ।

রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধের মধ্যে ঐতিহাসিক এক চুক্তির আওতায় প্রথমবারের মত ইউক্রেইন থেকে শস্য রপ্তানি শুরু হয়েছে, যার মধ্য দিয়ে বিশ্বজুড়ে খাদ্যশস্যের দাম কমার আশা তৈরি হচ্ছে।
সোমবার ইউক্রেইনের স্থানীয় সময় সকালে দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দর ওডেসা থেকে ২৬ হাজার টন ভুট্টা নিয়ে ছেড়ে যায় ‘রজনি’ নামের একটি জাহাজ। সিয়েরা লিওনের পতাকাবাহী জাহাজটি মঙ্গলবার লেবাননে পৌঁছানোর কথা।ইউক্রেইন সরকার বলছে, আসছে সপ্তাহগুলোতে ১৬টি জাহাজে আরও ছয় লাখ টন খাদ্যশস্যের চালান পাঠানোর পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেইনের সঙ্গে যুদ্ধ শুরু হলে কৃষ্ণসাগর অবরোধ করে রাশিয়া। তাতে বিশ্বজুড়ে খাদ্যশস্যের দামে উল্লম্ফন দেখা দেয়। শস্যের জন্য রাশিয়া ও ইউক্রেইনের ওপর নির্ভরশীল অনেক দরিদ্র দেশে দেখা দেয় খাদ্য সংকট। সূত্র: বিডি নিউজ

পাকিস্তানি লেখকের বই পড়ানো বন্ধ করল আলীগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটি

পাকিস্তানি ও মিশরীয় লেখকদের লেখা বই সিলেবাস থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের আলীগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটি।বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ছিল বিএ এবং এমএ ক্লাসের শিক্ষার্থীদের ইন্দো-পাক লেখক আবু আল-আ’লা আল-মওদুদি এবং মিশরীয় লেখক সাইয়েদ কুতুবের লেখা বই পড়ানো হয়।সম্প্রতি দেশটির সমাজকর্মী ও শিক্ষাবিদ মধু কিশওয়ারসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষাবিদ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে পাঠানো এক চিঠিতে এই লেখকদের বইগুলো শিক্ষার্থীদের না পড়ানোর আহ্বান জানান। বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যেষ্ঠ এক কর্মচারী ইন্ডিয়া টুডেকে জানান নরেন্দ্র মোদিকে লেখা ওই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটি। সূত্র: বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড।

জাওয়াহিরিকে হত্যায় কোন নতুন অস্ত্র ব্যবহার?

কাবুলে মার্কিন অভিযানে সুনির্দিষ্টভাবে শুধু জাওয়াহিরিকে হত্যা করা হলেও পরিবারের বাকি সদস্যরা অক্ষত আছে বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। অভিযানটি ছিলো বিস্ফোরণহীন। আর এতেই নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন, সম্পূর্ণ নতুন অস্ত্র ব্যবহার করেই জাওয়াহিরিকে তার আশ্রয়স্থলে হত্যা করে মার্কিন বাহিনী।সেনা সদস্য নয়, মাটির অনেক উপর থেকেই ড্রোন হামলার মাধ্যমে জাওয়াহিরিকে হত্যা করেছে মার্কিন বাহিনী। ধারণা করা হচ্ছে, জাওয়াহিরিকে হত্যায় যুক্তরাষ্ট্র তাদের গোপন অস্ত্র হেলফায়ার-আর নাইন এক্স ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছে। হেলফায়ার-আর নাইন এক্স-এ বিস্ফোরকের পরিবর্তে ছয়টি ব্লেড থাকে আর তাই একে যুক্তরাষ্ট্রের গোপন সোর্ড বোম্বও বলে থাকেন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা।ড্রোন থেকে অস্ত্রটি দিয়ে কোথাও হামলা চালালে শুধু লক্ষ্যবস্তুই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যখন এটিকে ছোঁড়া হয় তখন মূল ক্ষেপণাস্ত্র থেকে ব্লেডগুলো আলাদা হয়ে লক্ষ্যবস্তুতেই আঘাত হানে। আর তাই অক্ষত রয়েছেন তার পরিবারের অন্যরা। সূত্র: চ্যানেল আই অনলাইন