কুমিল্লাতে সম্মেলনের আগেই সম্পাদক দাবি আওয়ামী লীগ নেতার ভিডিও ভাইরাল

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ৬:৫৩ অপরাহ্ণ, ০৬/১২/২০১৯

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হুমায়ুন মাহমুদ। আর নিজেকে তিনি দাবি করেছেন কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে। আর কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের আগেই তার এই ঘোষণার ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

আর এই নতুন কমিটি ঘোষণার আগে এমন দাবিতে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ। এছাড়াও তার নানা কর্মকাণ্ডে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছেন এলাকাবাসী।

জানা গেছে, আগামী ২১ ও ২২ ডি‌সেম্বর আওয়ামীলীগ দল‌টির ২১তম জাতীয় স‌ম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর আগেই সারা‌দে‌শে জেলা ও মহানগর শাখার স‌ম্মেলন ক‌রে নতুন নেতৃ‌ত্বের হা‌তে দা‌য়িত্ব তু‌লে দি‌চ্ছে দল‌টি।

ইতোম‌ধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দ‌ক্ষিণ সহ অনেকগু‌লো সাংগঠ‌নিক ইউ‌নি‌টের স‌ম্মেলন শেষ হ‌য়ে‌ছে। এরই ধারাবা‌হিকতায় আগামী ৯ ডি‌সেম্বর কু‌মিল্লা উত্তর জেলা শাখার স‌ম্মেল‌নের তা‌রিখ নির্ধারণ করা হ‌য়ে‌ছে।

চা‌ন্দিনা ম‌হিলা বিশ্ববিদ্যালয় ক‌লেজ মা‌ঠে অনুষ্ঠিতব্য এ স‌ম্মেলনে প্রধান অতিথি হি‌সে‌বে উপ‌স্থিত থাকার কথা র‌য়ে‌ছে আওয়ামী লী‌গের সভাপ‌তি মণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল ক‌রিম সে‌লিমের।

কু‌মিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লী‌গের এক নেতা নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক শর্তে বলেন, সম্মেলনের আগেই কু‌মিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লী‌গের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার ঘোষণা দিয়ে হুমায়ুন আমাদেরকে লজ্জ্বা মধ্যে ফেলেছেন। আর তিনি কিভাবে জানলেন নতুন কমিটি ঘোষণার আগেই তার এই সম্পাদক হবার ঘটনার কথা।

Nagad

আরেক নেতাও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শর্তে বলেন, নেতা দাবি করেই ক্ষান্ত হননি হুমায়ুন। নতুন সাধারণ সম্পাদকের পরিচয় দিয়ে অনেককে হয়রানি করে চলছেন। ক্ষমতার দাপট দেখাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন এলাকায়। হুমায়ুন মাহমুদের এমন বিতর্কিত কর্মকান্ডের কারণে বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হচ্ছে চলমান কমিটির সাধারণ সম্পাদককেও।

জানা গেছে, হুমায়ুন মাহমুদ একজন সাধারণ মানুষকে হুমকি দেয়ার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামা‌জিক যোগা‌যোগ মাধ্যমে। সম্প্রতি ফেসবু‌কে ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, নিজেকে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দাবি করছেন হুমায়ুন মাহমুদ। এসময় এক ব্যবসায়ীকে দেখে নেয়ারও হুমকি দেন তিনি। পরে তাকে গালিগালাজ করেন হুমায়ুন মাহমুদ।

স্থানীয় অনেকে জানান, সহ-সভাপতির থাকার সময়েই নানা অপকর্মে জড়িত হন হুমায়ুন মাহমুদ। সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলে তার দাপট আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করছেন তারা। অনেক সময় মানুষকে হয়রানি ও হুমকি দিয়ে আসলেও তারা ভয়ে কেউ মুখ খুলতে রাজি হচ্ছেন না।

এসব অভিযোগের বিষয়ে সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দেয়া হুমায়ুন মাহমুদের সঙ্গে কথা বলতে বারবার তার মুঠোফোনে কল দিলেও তাকে পাওয়া যায়নি। এমনকি ক্ষুদে বার্তা পাঠানো হলেও তার কোনো জবাব দেননি হুমায়ুন মাহমুদ।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি হুমায়ুন মাহমুদ। কমিটির সভাপতি আব্দুল আউয়াল সরকার এবং সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকার। নতুন কাউন্সিলকে ঘিরে মাঠে তৎপর বেশ কয়েকজন প্রার্থী। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হিসেবে শোনা যাচ্ছে বেশ কয়েকজনের নাম। হুমায়ুন মাহমুদ তাদের একজন।

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আউয়াল সরকার জানান, ‘আগামী ৯ ডিসেম্বর চা‌ন্দিনা মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় ক‌লেজ মাঠে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে কাউন্সিলরদের ভোটে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত হবে। সম্মেলনের দিন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবে। পর্যায়ক্রমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে।’

সম্মেলনের আগেই হুমায়ুন মাহমুদ নিজেকে সাধারণ সম্পাদক দাবি করছেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এই কর্মকাণ্ড এমন ব্যক্তি‌রাই কর‌তে পা‌রে, এটা সম্পূর্ণ তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। এমন ব‌ক্তব্যের সা‌থে কু‌মিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ জ‌ড়িত নয় ‘

এদিকে তৃণমূল নেতাকর্মীদের দাবি, হুমায়ুনের কারণে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। জেলার নেতাদের অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হচ্ছে। এছাড়া, সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দেয়ার কারণে বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হচ্ছে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক‌কে।

কারণ হিসেবে নেতা কর্মীরা বলছেন, সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দিয়ে হুমকি দিয়ে আসায় অনেকে বর্তমান সাধারণ সম্পাদকের ওপর ক্ষুব্ধ হচ্ছে। এতে দলের পাশাপাশি রাজনৈতিক, সামাজিক ও ব্যক্তিগতভাবে আমাকে বড় ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে বলে জানান বর্তমান সাধারণ সম্পাদক।

সম্মেলনের আগেই নিজেকে সাধারণ সম্পাদক দাবি করায় হুমায়ুন মাহমুদের বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। দলের ভাবমূর্তি রক্ষার জন্যই তার বিরুদ্ধে দ্রুত কঠোর ব্যবস্থা নেয়া উচিত বলেন মনে করেন কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

সারাদিন/৬ডিসেম্বর/টিআর