যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেস, পরশ-বেলাল নিয়ে সর্বত্র গুঞ্জন

বিশেষ প্রতিনিধিবিশেষ প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ৭:৪৮ অপরাহ্ণ, ২১/১১/২০১৯

যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেস যতই ঘনিয়ে আসছে ততই চারদিকে সংগঠনটির সম্ভাব্য কাণ্ডারির নাম নিয়ে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ছে। সর্বশেষে যে নাম চারদিকে ছড়িয়ে পরছে তা হলো যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত শেখ ফজলুল হক মনির বড় ছেলে শেখ ফজলে শামস পরশ ও বর্তমান কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট বেলাল হোসেনের নাম

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংগঠনটির একাধিক নেতা গণমাধ্যমকে এই ব্যপারে বলেছেন। তাঁরা বলছেন, পরশ ভাই যে যুবলীগের চেয়ারম্যান হচ্ছেন বলা চলে নিশ্চিত। আর সে হলেও এটা দলের জন্য মঙ্গল হবে। কারণ যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ মনির ছেলের হাতে দায়িত্ব দিলে এ সংগঠনটি আরো চাঙ্গা হবে। আর নেত্রীও চান সংগঠনটিকে আরও গতিশীল করতে। ক্যাসিনো কান্ডে যে ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে, তা ফিরিয়ে আনতে।

অনেকেই এই পদের জন্য তদবির করছেন জানিয়ে শীর্ষ এক নেতা বলেন, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে শেখ ফজলুল হক মনির গড়া সংগঠন যুবলীগের ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধার করতে শুধু সভাপতি নয় সাধারণ সম্পাদক পদে শেষ পর্যন্ত পরিবর্তনও আসতে পারে। সে ক্ষেত্রে বেলালের নাম শোনা যাচ্ছে। এছাড়াও সাধারণ সম্পাদক পদে বেলালের বাইরে আলোচনায় আছেন মহিউদ্দিন আহমেদ মহি, সুব্রত পাল, আতাউর রহমান আতা, মঞ্জুরুল আলম শাহীন, ইসহাক আলী খান পান্না, চয়ন ইসলাম, বাহাদুর ব্যাপারী ও ব্যারিস্টার সাজ্জাদ হোসেন। এছাড়াও শেষ সময়ে পরিবর্তন হলেও হতে পারে বলেও জানা যায়।

সূত্র বলছে, প্রথমে যুবলীগের চেয়ারম্যান পদে মনির ছোট ছেলে শেখ ফজলে নূর তাপসকে ভাবা হলেও আওয়ামী লীগ করবেন জানিয়ে এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন তিনি। এরপর পরশকে নিয়ে ভাবা হয়। তিনি সম্মতি দিলে এই গুঞ্জন আরো জোড়ালো হয়। তিনি পেশায় একজন শিক্ষাক। ১০ বছর রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে স্নাতকোত্তর শেষে যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো স্টেট ইউনিভার্সিটি থেকেও ইংরেজিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন পরশ। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার দিন তার বাবা-মাও প্রাণ হারান।

উল্লেখ্য আগামী শনিবার যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেস হবে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। কংগ্রেস উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর দ্বিতীয় অধিবেশনে নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে। যোগ্য ও ত্যাগী নেতা বের করার জন্য এবার ‘সিলেকশন পদ্ধতি’ অনুসরণ করা হচ্ছে। শেখ হাসিনার নির্দেশে সিলেকশন পদ্ধতিতে আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা ইতিমধ্যে নির্বাচন করা হয়েছে। যুবলীগেও একই প্রক্রিয়ায় চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করা হবে।

সূত্র বলছে, ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে ক্ষমতাসীন দলের সহযোগী সংগঠন যুবলীগ ভীষণ ইমেজ সংকটে পড়েছে। যুবলীগের সেই হারানো ইমেজ ফিরিয়ে আনতেই সংগঠনটির প্রধান কাজ করছেন বলেও জানা যায়।

Nagad