গুলশানে হলি আর্টিজান জঙ্গি হামলা মামলার রায় আজ

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ৮:২৫ পূর্বাহ্ণ, ২৭/১১/২০১৯

রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড বেকারিতে জঙ্গি হামলা মামলার রায় ঘোষণার দিন আজ বুধবার ধার্য রয়েছে। ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান দুপুরে এ রায় ঘোষণা করবেন। গত ১৭ নভেম্বর রাষ্ট্রপক্ষ এবং আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে ট্রাইব্যুনাল রায় ঘোষণার এ দিন ঠিক করেন।

মামলা সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর গোলাম সারওয়ার খান (জাকির) বলেন, আসামিরা বাংলাদেশের জননিরাপত্তা বিপন্ন ও বহির্বিশ্বে প্রধানমন্ত্রীর ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার লক্ষে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জেএমবির নেতৃত্বে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ঠান্ডা মাথায় কূটনৈতিক এলাকায় হামলা করে দেশি-বিদেশিদের হত্যা করে। ওই হামলায় দেশি-বিদেশি ২২ জনকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো দুজন মারা যান।

২০১৮ সালের ২৬ নভেম্বর আদালত মামলাটির চার্জগঠন করেন। চার্জগঠন হওয়ার পরে মোট ৫২ কার্যদিবসে যুক্তিতর্ক শেষ করা হয়। মামলার মোট ২১১ জন সাক্ষীর মধ্যে ১১৩ জন সাক্ষীকে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আদালতে উপস্থিত করা হয়।

আসামি পক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন জানান, মামলা যুক্তিতর্ক শেষ করে রায়ের জন্য রয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে ২১১ জন সাক্ষীর মধ্যে ১১৩ জনের সাক্ষ্য, আলামত, তদন্তকারীর রিপোর্ট আসামিদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণ হয়নি। মোট ৪ দিনের যুক্তিতর্কে আমরা সেই বিষয়গুলো আদালতকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। রাষ্ট্রপক্ষের তথ্যে গড়মিল রয়েছে সেই কথা তুলে ধরেছি।

মামলার ৬ জন আসামির দেয়া ফৌজদারী কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি যে দিয়েছিলো তা শেখানো। সেই কথা অনেকবার আসামিরা নিজে মুখে আদালতে বলেছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তার দাখিলকৃত চার্জশিটে ও অন্যান্য সাক্ষীদের সাক্ষ্যগ্রহণে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি। আশা করি আদালত ন্যায় বিচার করবেন। আসামিরা খালাস পাবেন।

মামলার মোট আসামির সংখ্যা হচ্ছে ৮ জন। আট জন আসামির মধ্যে ৬ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আসামিরা হলেন- অস্ত্র ও বিস্ফোরক সরবরাহকারী নব্য জেএমবি নেতা হাদিসুর রহমান সাগর, বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক তামিম চৌধুরীর সহযোগী আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে আবু জাররা ওরফে র্যামশ, নব্য জেএমবির অস্ত্র ও বিস্ফোরক শাখার প্রধান মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান, জঙ্গি রাকিবুল হাসান রিগ্যান, জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব ওরফে রাজীব গান্ধী, হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী আব্দুস সবুর খান (হাসান) ওরফে সোহেল মাহফুজ, মামুনুর রশিদ ও শরিফুল ইসলাম। আসামিরা সকলেই কারাগারে রয়েছে।

Nagad

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে গুলশান হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় ইতালির নয় জন, জাপানের সাত জন, ভারতীয় একজন ও বাংলাদেশি দু’জন নাগরিক নিহত হন।

রাতভর সন্ত্রাসী ও জঙ্গি হামলার পরদিন সকালে সেনাবাহিনীর অপারেশন থান্ডারবোল্ড এর মাধ্যমে সমাপ্তি ঘটায়।